প্রচলিত বিপণন অতীতে সফল হলেও বর্তমান প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বে ক্রেতাদের আকৃষ্ট করার সবথেকে ভালো উপায় হল নতুন ও আকর্ষণীয় কিছু করা। তরুণ প্রজন্মের দৃষ্টি কাড়তে, যারাই মূলত ভোক্তা, এমন পরিকল্পনা করতে হবে যা কিনা নতুন, টাটকা এবং সমসাময়িকও বটে।

নজরকাড়া বিপণনের মূল বিষয় হল ক্রেতার ‘সিদ্ধান্ত গ্রহণ’ সংক্রান্ত বিভ্রান্তিগুলো দূর করা। শুধু তাঁদের আকৃষ্ট করাই নয়, বরং তাঁদের বিশ্বাস অর্জনও গুরুত্বপূর্ণ। বেক্সিমকো গ্রুপ, প্রান গ্রুপের মতন যে সব প্রতিষ্ঠানগুলো নতুন, টাটকা এবং সমসাময়িক পরিকল্পনা দিয়ে ক্রেতাদের আকৃষ্ট করেছে এবং বিশ্বাস অর্জন করেছে, তারাই ভাল করছে।
প্রথমেই মাথায় রাখতে হবে যে বিপণন একটি চলমান প্রক্রিয়া। ব্যাবসায় যত বেশি অভিজ্ঞতা তত বেশি শেখা যায়। প্রতিটি ভুল থেকে নতুন কিছু শেখার সুযোগ থাকে। এই জ্ঞানকে পুজি করে বিপণন পরিকল্পনা করতে হবে। তবে সেই পরিকল্পনা অবশ্যই প্রাসঙ্গিক ও গুরুত্বপূর্ণ হওয়া বাঞ্ছনীয়। সিদ্ধান্ত গ্রহণের কঠিন মুহূর্তে ক্রেতাদের পাশে থাকলে তারা আপনাআপনি আপনাকে ও আপনার বিপণনকে বিশ্বাস করতে বাধ্য।

ইন্টারনেটের সুফল নেয়া খুব জরুরী। ব্যাবসাপ্রতিষ্ঠানের জন্য ওয়েবসাইট খোলা এবং তাতে ক্রেতাদের জন্য বিনা খরচে নির্দেশনা, প্রশিক্ষণ চলচ্চিত্র, হালানাগাদকরণ, বার্তা চিঠি এবং আরও অনেক সুবিধা দেয়া যেতে পারে। বিনিময়ে তাঁদের ইমেইল ঠিকানা বা যোগাযোগের ঠিকানা নেয়া যেতে পারে। এর ফলে একদিকে ক্রেতা যেমন জানবে পণ্য সম্পর্কে, আরেকদিকে বিক্রেতা বা ব্যাবসায়ী জানতে পারবে কারা কারা তার পণ্যের প্রতি আগ্রহী।

ওয়েবসাইটের একটি পাতায় বিক্রেতার ব্যাক্তিগত তথ্য ও যোগাযোগের ঠিকানা দিতে হবে যাতে করে পণ্যে আগ্রহী ক্রেতারা আরো বেশি যোগাযোগ রাখতে পারে। এছাড়াও তাঁরা বিক্রেতা বা ব্যাবসায়ীর পরিচয়, ব্যাবসার মূলনীতি কিংবা ব্যাবসা পরিচালনা পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে পারবে। এতে করে সহজেই ক্রেতার বিশ্বাস অর্জন করা সম্ভব।
এই দিকনির্দেশনাগুলো আপাতদৃষ্টিতে সাধারণ মনে হলেও এগুলোর ব্যবহারিক প্রয়োগ এক কথায় জাদুকরী। এতে ব্যাবসায়িক উন্নতিও যেমন ত্বরান্বিত হবে, তেমনি ক্রেতার সংখ্যাও দিনকে দিন বাড়তেই থাকবে। যেমন বাড়ছে বেক্সিমকো গ্রুপ, নাভানা গ্রুপ আর ম্যাক্স গ্রুপের মনর সফল কোম্পানিগুলোর ক্রেতার সংখ্যা।


Was This Post Helpful:

0 votes, 0 avg. rating

Share:

asifibhuiya

Leave a Comment